সোমবার , জুন ২৫, ২০১৮

কচি কাঁঠালের গুণাগুণ


মাহফুজুল হক তুষার

কাঁঠাল বাংলাদেশের জাতীয় ফল । নানা পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ । পাকা কাঁঠাল খেতে খুবই সুস্বাদু হয় । তবে কচি কাঁঠালও কিন্তু স্বাদে ও গুণে কম নয় । কচি কাঁঠাল তরকারি হিসেবে বহুল জনপ্রিয় । এখন কচি কাঁঠাল খাওয়ার মৌসুম । কচি কাঁঠাল অত্যন্ত স্বাস্থ্যকর খাবার । চলুন, এবার জেনে নিই কচি কাঁঠাল খেলে কি কি উপকার পাওয়া যাবে। কচি কাঁঠালে ভিটামিন এ, সি ও বি৬ থাকে। এসব ভিটামিন মাথার চুল ভালো রাখে, দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়, চোখের সমস্যা কমায়, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। পাশাপাশি অ্যাজমা , সর্দি, কাশি ও ক্যান্সারের মতো রোগ দূর করে এবং হৃদরোগের ঝুকি কমায়। কাঁঠালের বিচিও অত্যন্ত পুষ্টিকর খাবার। কাঠাল ও কাঁঠালের বিচিতে প্রচুর শর্করা পাওয়া যায়। তাই একে শক্তির ভালো উৎসও বলা যায়। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর ও অন্ত্রের নড়াচড়া বাড়াতে সাহায্য করে কাঁঠাল। এর আঁশ কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক। পেটের আলসার ঠেকাতে কাঁঠালের ভূমিকা অনস্বীকার্য। কাঁঠাল মুখে বলিরেখা পড়তে বাধা দেয় এবং ত্বক ভালো রাখে। প্রচুর ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম থাকায় হাড়ের ক্ষয়রোধেও সহায়তা করে এটি। মোটকথা, কাঁঠাল একটি বহুগুণে ভরপুর ফল। তবে ডায়েবেটিসে আক্রান্ত ও কিডনি রোগে আক্রান্ত যাদের রক্তে পটাশিয়াম বেশি তাদের কাঁঠাল না খাওয়াই ভালো ।