মঙ্গলবার , অক্টোবর ২৩, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

মশা তাড়ানোর ঘরোয়া সমাধান


জীবনধারা ডেস্ক

মশা খুবই ক্ষতিকর একটি কীট। মশা কামড় দেয়া ছাড়াও মানব শরীরের সংস্পর্শে বিভিন্ন রোগ জীবাণু ছড়ায়। মশার কামড়ে অনেক সময় মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হয়। তাই এ ক্ষতিকর প্রাণী ঘর থেকে তাড়াতে কিছু ঘরোয়া উপায় জেনে নিন-

লেবু সংরক্ষণ রস করার পদ্ধতিঃ

অনেক সময় রান্নায়, জুস বানাতে অথবা রুপচর্চায় লেবুর বেচশি পরিমাণে রসের প্রয়োজন পড়ে। অনেকেই লেবুর রস বের করতে বিরক্তবোধ করেন। এখন আপনাদের যে টিপসটি বলব তা যদি অনুসরণ করেন তবে আপনারা আর লেবুর রস বের করতে বিরক্ত হবেননা। একটি লেবু শক্ত জায়গায় নিয়ে হাত দিয়ে একটু ডলে নিন। ১২ মিনিট ডললেই লেবুর ভিতরে রস নরম হয়ে যাবে। পরবর্তিতে আপনি লেবুর রস খুব সহজে বের করতে পারবেন। জুস বানাতে আপনি এই টিপস টি অনুসরণ করলে আপনার লেবুর রস বের করতে কষ্ট কম হবে। আপনি লেবুর রস বের করে খোসা ফেলে না দিয়ে, এটি হাতে বা মুখে ঘসতে পারেন। এতে খুব সুন্দর একটি গ্লো আসবে। লেবুর রস মশা তাড়াতেও ব্যবহার করতে পারেন।

অনেক সময় যেকোন কাজে বেশি লেবু আনলে ২১ লেবু থেকে যায়। এগুলো দাগ দাগ হয়ে নষ্ট হয়ে যায়। সেসময় আপনি লেবুগুলো সংরক্ষণ করে রাখবেন। সংরক্ষণ করার জন্য আপনি লেবুর রস একটি আইসট্রেতে ঢেলে ডিপ ফ্রিজে ৭৮ ঘন্টা রেখে দিবেন। লেবুর রস বরফ হয়ে গেলে এটি বের করে একটি ব্যাগে সংরক্ষণ করবেন। তাই কষ্ট করে আর বাজার থেকে প্রতিদিন আপনাকে লেবু আনতে হবেনা। এ বরফের টুকরোগুলো ব্যবহার করলে হবে। অসময়ে এভাবে লেবুর রস কাজে লাগাতে পারবেন। এ লেবু দিয়ে মশা ও দূর করতে পারবেন।

লেবু দিয়ে মশা তাড়ানোর উপায়ঃ

মশা খুবই যন্ত্রণাদায়ক পতঙ্গ। মশা বিভিন্ন রোগ-জীবাণু ছড়ায়। মশার কামড়ে অনেক সময় মানুষের মৃত্যুও হয়। ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া, ফাইলেরিয়া, পীতজ্বর, জিকা ভাইরাস, চিকুনগুনিয়া প্রভৃতি মশার কামড়ে হয়ে থাকে। মসা তাড়ানোর বিভিন্ন ঔষুধ, কয়েল, স্প্রে বাজারে পাওয়া যায়। কিন্তু এগুলো স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারি। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে মসা তাড়ালে স্বাস্থ্যের কোন ক্ষতি হবেনা।

লেবুর মাঝ বরাবর দিয়ে কেটে এর ভিতরে লবঙ্গ গেথেঁ দিন। লবঙ্গ এমন ভাবে ঢুকাতে হবে যেন এর মাথার দিক বাইরে থাকে। এরপর এই লেবুর টুকরাগুলো ঘরের কোনায় কোনায় রেখে দিন। এতেই ঘরের মশা দূর হয়ে যাবে। এছাড়া লেবুতে লবঙ্গ গেথেঁ ঘরের জানালায় রেখে দিলে ঘরে আর মশা ঢুকবে না।

অন্যান্য উপায়ে মশা তাড়ানোঃ

  • নিমের তেল আর নারকেল তেল এক সঙ্গে মিশিয়ে গায়ে মেখে রাখবেন। তবে মশা আর আপনার কাছে আসবে না। এছাড়াও এটি ত্বকের জন্যও অনেক উপকারি। এ তেল অ্যালার্জি, ইনফেকশন জাতীয় অনেক সমস্যাও দূর করে।
  • ছোট গ্লাসে পানি নিয়ে তার মধ্যে পুঁদিনা গাছ রেখে দিবেন। ৩ দিন পর পর পানি পরিবর্তন করে দিবেন। এ গাছ মশা দূরে রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও পুঁদিনা পাতা ছেঁচে পানিতে ফুটিয়ে পুরো ঘরে ছিটিয়ে দিলে মশা সব পালিয়ে যাবে।
  • থাই লেমন গ্লাসে থাকে সাইট্রোনেলা অয়েল। যা এক ধরনের সুগন্ধি। এ সুগন্ধ মসা সহ্য করতে পারেনা। তাই আপনার আশেপাশে লেমন গ্লাসের ঝাড়ঁ রাখবেন। তাহলেই মশা কুপোকাত। গাছটি এমন জায়গায় রাখবেন যেখানে আপনি দিনের বেশির ভাগ সময় কাটান। এভাবে আপনি থাকতে পারেন মশা থেকে দূরে।
  • নিশিন্দা ও ধুনোর গুড়ো এক সঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করলে আর মশা কাছে আসবে না।
  • মশা থেকে দূরে থাকতে চাইলে আপনি ঘরের লাইট হলুদ সেলোফোনে জড়িয়ে দিবেন। এতে ঘরের আলো হলুদ হবে। আর ঘরের মসা ও কমে যাবে। কারণ মশা হলুদ আলো থেকে দূরে থাকতে চায়। এলিইডি লাইট, হলুদ লাইট, সোডিয়াম লাইট থেকে মশা দূরে থাকে। এ লাইট জ্বালালে মশার আক্রমণ অনেক কমে যাবে।
  • চা পাতা এক বার ব্যবহারের পর ফেলে না দিয়ে রোদে শুকাবেন। ওই চা পাতা পুড়িয়ে সারা ঘরে ধোঁয়া ছড়িয়ে দিবেন। এতে মশা ও মাছি সব পালিয়ে যাবে।
  • আপনি কাঠ কয়লার আগুনে নিম পাতা পুড়াতে পারেন। এটি ও মশা তড়াতে খুব উপকারি।
  • জোরে ফ্যান চালিয়ে মশা দূর করতে পারেন। মসার উড়বার গতিবেগের থেকে ফ্যানের গতিবেগ বেশি হলে সেখানে মসা থাকে না। তাই হালকা মশার হাত থেকে রক্ষা পেতে জোরে ফ্যান চালিয়ে রাখুন।
  • মশা গাড় রঙের প্রতি বেশি আকৃষ্ট হয়। তাই কালো, নীল, লাল কাপড় এড়িয়ে চলবেন। হালকা রঙের কাপড় পরে মশা থেকে দূরে থাকবেন।
  • কর্পূর একটি বাটিতে রেখে পানি দিয়ে পূর্ণ করবেন। এবার এ বাটি আপনি ঘরের কোণায় কোণায় রাখবেন। এ পানি দিয়ে ঘরও মুছতে পারেন। এতে ঘর থেকে মশা দূর হবে আর পিপড়া থেকেও রক্ষা পাবেন।

সূত্রঃ ডেইলি বাংলাদেশ