বুধবার , সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর পরিকল্পনা নেই: জনপ্রশাসনমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩০ বছর থেকে বাড়ানোর কোনও পরিকল্পনা আপাতত নেই বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। বুধবার (৬ জুন) জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সেলিনা বেগমের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, আগে বিশ্ববিদ্যালয়ে বড় ধরনের সেশনজট ছিল। এখন সেশনজট নেই বললেই চলে। ফলে শিক্ষার্থীরা ১৬ বছর বয়সে এসএসসি, ১৮ বছরে এইচএসসি এবং ২৩-২৪ বছর বয়সে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিতে পারছেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে চাকরি থেকে অবসরের বয়সসীমা ৫৭-৫৯ বছরে উন্নীত হওয়ায় শূন্যপদের সংখা স্বাভাবিকভাবেই কমেছে। এই প্রেক্ষাপটে চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানো হলে বিভিন্ন পদের বিপরীতে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা ব্যাপক হারে বেড়ে যাবে। ফলে নিয়োগের ক্ষেত্রে অধিকতর প্রতিযোগিতা সৃষ্টি হতে পারে। এতে চাকরিপ্রার্থী যাদের বয়স ৩০-এর কম তাদের মধ্যে হতাশা সৃষ্টি হতে পারে।

মন্ত্রী আরও বলেন, সরকারি চাকরির বয়সসীমা ৩০ বছর বিধায় স্নাতকোত্তর করার পরও তারা চাকরিতে আবেদনের জন্য ৬-৭ বছর সময় পেয়ে থাকেন। তাই ৩০ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ বছর করার কোনও পরিকল্পনা আপাতত নেই।

সরকারি দলের এমপি মমতাজ বেগমের প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ আশরাফ বলেন, বর্তমান সরকারের মেয়াদে (২০০৯ থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত) বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে ছয় লাখ ১৩ হাজার ১৫১টি পদ সৃষ্টি করা হয়েছে। এছাড়া ৫২ হাজার ৭৯টি পদ সৃষ্টির কাজ প্রক্রিয়াধীন আছে।

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন