বুধবার , নভেম্বর ১৪, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

জামালপুরে ইউএনও দেড় ঘন্টা অবরুদ্ধ ॥ পুলিশি পাহাড়ায় কার্যালয় ছাড়লেন


এম আলমগীর, স্টাফ করসপনডেন্ট
জামালপুরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরি কাম নৈশ-প্রহরী নিয়োগে ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর এবার তাকে তার অফিসে দেড় ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখলেন বিক্ষুব্ধ প্রার্থী ও তাদের স্বজনরা।
বৃহস্পতিবার একটি বিদ্যালয়ের দপ্তরি পদে মৌখিক পরীক্ষায় স্বজন প্রীতি করে এক আবেদনকারীকে বেশি নম্বর দেওয়ার প্রতিবাদে পরীক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয় এলাকাবাসী ইউএনও অফিসের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করেন। এ সময় তারা ইউএনও’কে তার অফিস কক্ষে অবরুদ্ধ করে রাখেন। অবস্থা বেগতিক দেখে ইউএনও পুলিশ পাহাড়ায় উপজেলা পরিষদ ত্যাগ করেন। স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে ছিল কয়েকটি স্কুলের দপ্তরি কাম-প্রহরী নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা। জামালপুর সদর উপজেলার তিতপল্লা ইউনিয়নের দহের পাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ওই পদে তিনজন প্রার্থী পরীক্ষায় অংশ নেন। ওই বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও জামালপুর শহর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক রশিদুল করিম তুহিন অভিযোগ করেন, নিয়োগ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ মফিজুর রহমান মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে তাঁর পছন্দের প্রার্থী রিপন মিয়াকে সর্বচ্চ নম্বর দেন এবং অন্য সদস্যদের দিয়েও বেশি নম্বর দেওয়ান। বিষয়টি জানাজানি হলে উপস্থিত অন্য প্রার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয় এলাকাবাসী বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। পরে প্রার্থীদের আত্মীয়-স্বজন ও বিক্ষুব্ধ জনতা দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত ইউএনওকে অবরুদ্ধ করে রাখেন। এ সময় তারা উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করেন। অবস্থা বেগতিক দেখে ইউএনও থানায় ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চান। পরে পুলিশী পাহাড়ায় অফিসের গাড়িতে করে অফিস ত্যাগ করে তিনি ডিসি অফিসের দিকে চলে যান। উল্লেখ্য, এর আগে শহরের চালাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরি পদে নিয়োগে ঘুষ গ্রহণ ও অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে ইউএনও ডাঃ মোহাম্মদ মফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়। ইউএনও ডাঃ মোহাম্মদ মফিজুর রহমান ঘুষ-দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমরাতো পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করিনি। তাছাড়া ওই স্কুলের সভাপতির পছন্দের প্রার্থীর চাকুরি না হওয়ার আশঙ্কায় তিনি লোকজন নিয়ে আমার অফিসের সামনে হট্টগোল করেছে।