শনিবার , মে ২৬, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

ট্রেনের দরজা বন্ধ করে ব্যবসা : উঠানামায় ভোগান্তি যাত্রীদের


নয়ন আসাদ
জামালপুর থেকে ঢাকাগামী আন্ত:নগর তিস্তা ট্রেনের দরজা বন্ধ করে চলছে রমরমা ব্যবসা। যারা নিয়মিত ট্রেনে যাতায়াত করেন তারা হয়ত জানেন অভিনব এই ব্যবসার কথা, কিন্তু যারা জানেন না তাদের জানাচ্ছি এই অভিজ্ঞতার কথা।


জামালপুর থেকে ময়মনসিংহ যখন পৌছালাম তখন বিকাল পাঁচটা। স্টেশনে পৌছার পর নামতে গিয়ে দেখি দরজা বন্ধ। কেন ? কারন, দরজার সামনে টুল দিয়ে সেখানে যাত্রী বসিয়ে টাকা নিয়েছেন ট্রেনের অসাধু কিছু কর্মকর্তা। যেহেতু টাকা নিয়ে অবৈধভাবে যাত্রীদের টুলে বসিয়েছেন কাজেই কোন স্টেশনে ট্রেন থামলে সাধারণ যাত্রীদের উঠানামার জন্য সেই টুল পেতে বসা যাত্রীর যাতে বারবার কষ্ট করে দরজার সামনে থেকে উঠতে না হয় সেজন্য দরজাই বন্ধ।
সেখানে বসে থাকা যাত্রীকে উঠতে বলতেই বলে উঠেন, টাকা দিয়ে টুলে বসেছি ভাই, মাগনা না।
যেহেতু স্টেশনে ট্রেন দাড়ায় মাত্র তিন মিনিটের জন্য কাজেই কথা না বাড়িয়ে দ্রুত নেমে যেতে সামনের বগির দরজার দিকে পা বাড়ালাম। একটি বগি থেকে প্রায় অর্ধশতাধিক যাত্রী নামার জন্য প্রাণান্তকর চেষ্টা করছি আর অন্যদিকে সমান সংখ্যক যাত্রী উঠার জন্য প্রাণান্তকর চেষ্টা করে যাচ্ছে । প্রচন্ড হুড়াহুড়ি আর ধাক্কধাক্কির মধ্যেই ট্রেন ছেড়ে দিল। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লাফিয়ে নামলাম। শুধু আমি নই আরো অনেকজন।

শুধু মাত্র সামান্য কয়টা টাকার জন্য রেলওয়ের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর এমন কান্ডজ্ঞানহীন কাজ শত শত যাত্রীর ভোগান্তি বাড়ালেও সেদিকে কারো নজর আছে বলে মনে হয় না। অবিলম্বে এসব বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।