বুধবার , অক্টোবর ২৪, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

আজ শেরে বাংলার ৫৬ তম মৃত্যুবার্ষিকী


মাহফুজুল হক তুষার

বাংলার খেটে খাওয়া মানুষের প্রাণপ্রিয় নেতা ছিলেন শেরে বাংলা এ. কে ফজলুল হক । তিনি ছিলেন বাংলার আপামর জনতার প্রিয় বন্ধু । আজ শেরে বাংলা এ.কে ফজলুল হকের ৫৬ তম মৃত্যুবার্ষিকী। শেরে বাংলা আবুল কাশেম ফজলুল হক ১৮৭৩ সালে বরিশাল জেলার রাজাপুর থানার সাতারিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন । তিনি কাজী মুহাম্মদ ওয়াজেদ আলী ও সাইদুন্নেসা খাতুনের একমাত্র পুত্র ছিলেন। ১৮৮৯ সালে বরিশাল জিলা স্কুল থেকে ঢাকা বিভাগে মুসলমান ছাত্রদের মধ্যে ১ম স্থান অর্জন করেন । কলকাতা প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে এফ.এ এবং ১৮৯৩ সালে গণিত, রসায়ন ও পদার্থ বিদ্যায় অনার্সসহ প্রথম শ্রেণিতে বি.এ পাশ করেন । তিনি গণিতশাস্ত্রে প্রথম শ্রেণিতে এম.এ পাশ করেন । ১৮৯৭ সালে কলকাতার রিপন কলেজ থেকে বি.এল পাশ করেন । কর্ম জীবনের শুরুতে তিনি কলকাতা ও বরিশাল কোর্টে আইন ব্যবসা করেন । তারপর ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে সরকারি চাকরি করেন । এ. কে ফজলুল হক আমাদের জামালপুর মহকুমার এস.ডি.ও এবং সমবায় কেন্দ্রের সহকারী রেজিষ্টার ছিলেন । ১৯১১ সালে সরকারী চাকরি ত্যাগ করে তিনি পুনরায় আইন ব্যবসা শুরু করেন । তিনি কিশোরদের “বালক” পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন । কবি নজরুল সম্পাদিত নবযুগ পত্রিকায় পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন। শেরে বাংলা নিখিল ভারত মুসলিম লীগের সভাপতি এবং নিখিল ভারতীয় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন । তিনি ১৯১৩ সালে বঙ্গীয় আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন । ১৯২৪ সালে বাংলার শিক্ষামন্ত্রী হন । ১৯৩৫ সালে কলকাতা
মিউনিসিপ্যাল করপোরেশনের প্রথম মুসলমান মেয়র নির্বাচিত হন । ১৯৩৭ সালে অবিভক্ত বাংলার প্রধানমন্ত্রী হন । তিনি লাহোর প্রস্তাবের উপস্থাপক ছিলেন। তিনি কৃষক শ্রমিক পার্টির সভাপতি নিযুক্ত হন এবং এ দল নিয়ে ১৯৫৪ সালে যুক্তফ্রণ্ট গঠন করেন এবং পূর্ব বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হন। তিনি পাকিস্তানের সরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পূর্ব পাকিস্তানের গভর্ণরের দায়িত্বও পালন করেছেন । ১৯৫৮ সালে রাজনিতী থেকে অবসর নেন । পাকিস্তান সরকার তাকে হেলাল-ই-পাকিস্তান খেতাব দেন । ১৯৬২ সালের ২৭ শে এপ্রিল পরলোক গমন করেন । বাংলা থেকে তিনি জমিদারি প্রথা উচ্ছেদ করেন। শিক্ষা ব্যবস্থা বিশেষ করে মুসলমানদের শিক্ষা অর্জনের ব্যাপক সুযোগ তৈরি করেছেন । তার শাসনামলে তিনি বাংলার ও বাংলার মানুষের জন্য নানাবিধ উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন । বাঙালি জাতি শেরে বাংলা এ. কে ফছলুল হক কে চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে ।