শনিবার , সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

জামালপুরে বাবুল চিশতীকে যুদ্ধাপরাধী দাবি করে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

এম আলমগীর, স্টাফ করসপনডেন্ট
বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক, ফারমার্স ব্যাংকের অডিট কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক বাবুল চিশতীকে যুদ্ধাপরাধী দাবি করে তার মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল এবং শাস্তির দাবি করেছেন জামালপুরের মুক্তিযোদ্ধাদের একাংশ।
রোববার দুপুরে জামালপুর শহরের দয়াময়ী চত্বরে জেলার প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাগণের ব্যানারে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন থেকে এই দাবি করা হয়েছে।
মানববন্ধনে সরকারি চাকুরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল এবং ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা থেকে বাদ দেয়ারও দাবি জানানো হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বাস্থ্য উপমন্ত্রী ও জেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান প্রমুখ।
মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধারা অভিযোগ করেন, এ পর্যন্ত যতগুলো তালিকা করা হয়েছে মুক্তিযোদ্ধাদের তার সবগুলোই জালিয়াতি ও ত্রুটপুর্ণ। জামুকা, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং সকল স্তরের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ লাগাতার দুর্নীতির মাধ্যমে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা তৈরির প্রক্রিয়া অব্যাহত রেখেছে। কোটা সংস্কারের আন্দোলন যেভাবে পরিচালিত ও নিরসন করা হয়েছে তাতে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে আঘাত করা হয়েছে। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরেও রাজাকার, আলবদর ও শান্তি কমিটিসহ স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের কোন তালিকা প্রকাশ করা হচ্ছে না। মুষ্টিমেয় অপরাধীর বিচার হলেও এখনো বিচারযোগ্য যুদ্ধাপরাধীরা বহাল তবিয়তে অবাধ স্বাধীনতা উপভোগ করছে।


মুক্তিযোদ্ধাদের অভিযোগ, মাহবুবুল হক বাবুল চিশতী যুদ্ধাপরাধী হলেও মুক্তিযোদ্ধার ভূয়া সনদ নিয়ে সর্বোচ্চ মাত্রায় কাজে লাগিয়ে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ড কাউন্সিলের কেন্দ্রীয় নেতা হয়েছিলেন। মাহবুবুল হক বাবুল চিশতী ১৯৭১ সালে শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলার নাচনমহরী গ্রামের মোখলেছুর রহমান চেয়ারম্যানকে হত্যা এবং তার পুত্র মুক্তিযোদ্ধা সাইফুলকে পাকবাহিনীর হাতে তুলে দেয়। পাকবাহিনী মুক্তিযোদ্ধা সাইকুলকে নৃশংসভাবে হত্যা করে। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে তার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধী মামলা অপেক্ষমান আছে দাবি করে মামলাটির তদন্ত শুরুর দাবি জানান মুক্তিযোদ্ধারা।
মুক্তিযোদ্ধারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হন্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, যুদ্ধাপরাধী বাবুল চিশতীকে এখনই থামান, না হলে সে মুক্তিযোদ্ধা খেয়েছে, মুক্তিযোদ্ধার পিতাকে খেয়েছে, ব্যাংক খেয়েছে, এখন সে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পদক গিলে খাবে। মুক্তিযোদ্ধারা সরকারি চাকুরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা বহাল রাখতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
পরে মুক্তিযোদ্ধারা শহরে বিক্ষোভ মিছিল এবং জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন।
উল্লেখ্য, ফারমার্স ব্যাংকের অডিট কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক বাবুল চিশতীকে গত ১০ এপ্রিল দুদক গ্রেপ্তার করে ৫ দিনের রিমান্ডে নেয়।