রবিবার , এপ্রিল ২২, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

কোটা সংস্কারের দাবিতে সারাদেশে বিক্ষোভ-সড়ক অবরোধ

নিউজ ডেস্ক

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আন্দোলন ও বিক্ষোভ মিছিল চলছে। বিভিন্ন জায়গায় সড়ক অবরোধ করা হয়েছে। রাজধানীতে কোটা সংস্কারের আন্দোলনকারীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে দেশব্যাপী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। তবে কোথাও বড় ধরনের কোনও সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি।

সোমবার (৯ এপ্রিল) সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ আন্দোলন শুরু হয়। এর আগে রবিবার (৮ এপ্রিল) বিকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আন্দোলন চলে।

কোটা সংস্কারের দাবিতে সোমবার সকালে ঢাকা- আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষার্থীরা। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে তারা। এরপর থেকে রাস্তার দুই পাশেই যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে এসে শেষ হয়। পরে সেখানেই সকাল সাড়ে দশটায় অবস্থান নেয় সহস্রাধিক শিক্ষার্থী।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি জানিয়েছেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ক্লাস বর্জন করে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা। সোমবার (৯ এপ্রিল) সকাল ১০টায় সড়ক অবরোধ করে তারা সেখানে অবস্থান নেয়। এছাড়া, বিভিন্ন একাডেমিক ভবনের প্রবেশপথে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেওয়ায় কোনও বিভাগে ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়নি। এর আগে রবিবার (৮ এপ্রিল) বিকাল ৪টা থেকে ৮টা এবং রাত দেড়টায় দুই দফা মহসড়ক অবরোধ করে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি জানিয়েছেন, শাবিপ্রবিতে প্রধান ফটকে অবস্থান নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সোমবার (৯ এপ্রিল) সকাল ৭টা থেকে তারা অবস্থান নেয়। সোমবার সকাল ৭টার দিকে শাবির কোটা সংস্কার আহ্বায়ক কমিটির নেতৃত্বে শিক্ষার্থীরা অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে। পরবর্তীতে পৌনে ৮টার দিকে শাবি শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা প্রধান ফটকে এসে তাদেরকে গেট অবরোধ না করার অনুরোধ করে। পরে শিক্ষার্থীরা গেটের পাশেই অবস্থান করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়। তবে অল্প কিছু বিভাগে দু-একটা ক্লাস-পরীক্ষা হয়েছে বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কোটা সংস্কারের দাবিতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) শাটল ট্রেন অবরোধ করে ক্লাস বর্জনের কর্মসূচি পালন করেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

খুলনা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কোটা পদ্ধতি সংস্কার দাবিতে সোমবার সকাল থেকে ক্লাস করছে না খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) ছাত্ররা। এছাড়া ক্যাম্পাসে ছাত্রদের অন্য কোনও কর্মসূচি সকালে শুরু হয়নি।  এর আগে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে রবিবার রাতে খুলনার ছাত্ররা মহানগরীর জিরোপয়েন্টে অবস্থান নিয়ে অবরোধ শুরু করেছিল। তারা রাজধানীতে ছাত্রদের ওপর কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপের প্রতিবাদ জানায়। এ সময় যনবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু ১৫ মিনিটের মাথায় পুলিশ তাদেরকে তুলে দেয়। ছাত্ররাও সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বাজায় রেখে যার অবস্থানে ফিরে যায়। এরপর থেকে আরও কোনও আন্দোলন হয়নি।

দিনাজপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন,  কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।  সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের দিনাজপুর-ঢাকা মহাসড়কে অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা বিভিন্ন স্লোগান দেয়। এতে করে ওই মহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে।

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোনাপাড়ায় ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সোমবার সাড়ে ১০ টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ-সমাবেশে যোগ দেয়। পরে তারা ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে বাশঁ, ব্লক ও ইট দিয়ে বেরিকেড সৃস্টি করে সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। সেখানে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে।

বরিশাল প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কোটা পদ্ধতির সংস্কার দাবিতে পটুয়াখালী-বরিশাল মহাসড়ক অবরোধ করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলছে। রবিবার সন্ধ্যা হতে শুরু হওয়া বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আন্দোলন সোমবার দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে।

রংপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কোটা সংস্কারের দাবিতে সোমবার সকাল থেকে রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় কারমাইকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। পরে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে নগরীর প্রবেশ মুখের মডার্ন মোড়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। এ সময় রংপুর ঢাকা রংপুর দিনাজুপুর রংপুর কুড়িগ্রাম রংপুর লালমনিরহাট সহ সকল অবরোধের কারণে ওই সব সড়ক দিয়ে সকল প্রকার যান চলাচল দীর্ঘ ২ ঘণ্টা বন্ধ ছিলো। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অনুরোধে দুপুর ১টার দিকে অবরোধ তুলে নেয় শিক্ষার্থীরা।

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন