সোমবার , জুন ২৫, ২০১৮

সব দলকে নির্বাচনে আনা সরকারের দায়িত্ব: মির্জা ফখরুল

নিউজ ডেস্ক

বিএনপিসহ সব বিরোধী রাজনৈতিক দলকে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আনা সরকারের দায়িত্ব বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সোমবার (১২ মার্চ) বেলা ১১টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন,‘বিরোধী দলগুলোকে তাদের স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে দিচ্ছে না সরকার। এ অবস্থায় সরকার কীভাবে একটি অংশগ্রহনমূলক নির্বাচন করবে? সবার সমান সুযোগ নিশ্চিত করতে বিরোধী দলগুলোকে তাদের স্বাভাবিক রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে দিতে হবে। সবাইকে নির্বাচনে আনা সরকারের দায়িত্ব।’

তিনি বলেন, ‘এ বছর নির্বাচনি বছর। সেজন্য সুষ্ঠু, অবাধ ও অংশগ্রহনমূলক নির্বাচন করতে  সরকারকে পরিবেশ তৈরি করতে হবে। এজন্য বিরোধী দলগুলোকে তাদের স্বাভাবিক গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনার অধিকার দিতে হবে। তা না হলে নির্বাচন অংশগ্রহনমূলক হবে কীভাবে? আশা করছি নির্বাচন অবাধ ও অংশগ্রহনমূলক করতে সরকার দ্রুত পদক্ষেপ নেবে।’

সরকার জনগণকে ভয় পায় বলে বিএনপিকে সমাবেশের মতো গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে অনুমতি দিচ্ছে না অভিযোগ করে ফখরুল বলেন, ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যান পাবলিক প্রপার্টি। কোনও ব্যক্তির সম্পত্তি নয়। সেখানে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টিসহ মহাজোটের অন্যান্য দল সমাবেশের অনুমতি পায়। বিএনপিসহ বিরোধীদলকে সমাবেশের অনুমতি না দেওয়া সরকারের হুঙ্কারসর্বস্ব রাজনীতির প্রতিফলন। তারা সব ধরনের গণতান্ত্রিক অধিকার বন্ধ করে দিচ্ছে। জনগণের সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নিচ্ছে। এর মাধ্যমে সরকার আবারও একটি একদলীয় নির্বাচনের দিকে যাচ্ছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, “গতকাল রবিবার আমাদের প্রতিনিধি দল ডিএমপির সঙ্গে দেখা করলে বলা হয়- গোয়েন্দা রিপোর্টের ভিত্তিতে ‘নিরাপত্তাজনিত’ কারণে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া যাচ্ছে না। তাহলে দেশ কি গোয়েন্দারা চালাচ্ছে। একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দলকে তাদের রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করে সমাবেশের জন্য অনুমতি দেওয়া হলো না?”

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা সংঘাত এড়িয়ে গণতন্ত্রে স্বীকৃত অধিকারগুলো প্রয়োগ করতে চাই। জনসভা করা সাংবিধানিক অধিকার। এটি কোনও বেআইনি কর্মসূচি নয়। আমরা বারবার এটি বলে আসছি। অনেকে মনে করছেন এটি আমাদের দুর্বলতা। মনে রাখবেন আজকে আমাদের সঙ্গে এমন হচ্ছে, কালকে আপনাদের সঙ্গেও এমন হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ড. আবদুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমদ আজম খান, উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিহভী, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ।

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন