মঙ্গলবার , অক্টোবর ১৫, ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

লিটন ভালো ফিল্ডার, তাই কিপিং করবেন মুশফিকই

খেলাধুলা ডেস্ক

ব্যাটসম্যান হিসেবে মুশফিকুর রহীমের সামর্থ্য ও পারফরম্যান্স নিয়ে প্রশ্ন তোলার সুযোগ নেই কোনো। বর্তমান দল তো বটেই, দেশের ইতিহাসেরই অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান তিনি। তবে উইকেটরক্ষক হিসেবে মুশফিকের পারফরম্যান্সের দিকে আঙুল তোলার মানুষের অভাব নেই। সেই সুযোগটাও করে দেন মুশফিক নিজেই।

বেশি পেছনে যেতে হবে না। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ঢাকা পর্বের ম্যাচেই অন্তত ১৫ রান ছুটেছে মুশফিকুর রহীমের গ্লাভসের নিচ দিয়ে। এছাড়া প্রতি ম্যাচে কখনও সহজ রানআউটের সুযোগ, আবার কখনও হাতের ক্যাচ ফেলে দেয়ার মতো ঘটনা যেনো খুবই নিয়মিত ব্যাপার মুশফিকের জন্য।

বিশেষ করে সবশেষ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে উইকেটের সামনে মুশফিকুর রহীমের বাচ্চাসুলভ এক ভুলে জীবন পেয়েছিলেন প্রতিপক্ষ অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। পরে রস টেলরের সঙ্গে জুটি গড়ে তিনিই ম্যাচ জিতিয়ে দেন কিউইদের। এরপর থেকে প্রায় প্রতি ম্যাচেই ভুলের পসরা সাজিয়ে বসেন মুশফিক।

অথচ মুশফিকের সঙ্গেই একাদশে খেলেন আরেক উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান লিটন কুমার দাস। অনেকেরই মতে উইকেটরক্ষক হিসেবে মুশফিকের চেয়ে ঢের এগিয়ে লিটন। অল্প কিছু ম্যাচে কিপিং গ্লাভস হাতে নিয়ে নিজের সামর্থ্যের প্রমাণও দিয়েছেন লিটন। তবু একাদশে লিটন থাকলেও, কিপিং গ্লাভস পান মুশফিকই।

কিন্তু এমনটা আর কতদিন? এখন কি মুশফিককে ব্যাটিংয়ের জন্য নির্ভার করে কিপিং গ্লাভস তুলে দেয়া যায় না লিটনের হাতে? এর উত্তর সবচেয়ে ভালো দিতে পারতেন দলের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। তাই তার কাছেই ছুড়ে দেয়া হলো প্রশ্নটি। উত্তরে ডোমিঙ্গো যা বললেন, তাতে উইকেটরক্ষক লিটনের চেয়ে ফিল্ডার লিটনের প্রশংসাই থাকল বেশি।

একইসঙ্গে ফিল্ডার হিসেবে মুশফিকের চেয়ে লিটন এগিয়ে থাকায়, তাকে ফিল্ডার হিসেবেই দলে চান ডোমিঙ্গো। তাতে মুশফিক সুযোগ হাতছাড়া করলেও যেনো ক্ষতি নেই টাইগারদের প্রধান কোচের। তাই মাঠে মুশফিককে ফিল্ডার হিসেবে পাওয়ার চেয়ে উইকেটরক্ষক হিসেবে রাখাই শ্রেয় মনে করেন তিনি।

সোমবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে ডোমিঙ্গো বলেন, ‘না না, মুশফিকের বদলে অন্য কারও কিপিং করার সম্ভাবনা নেই। দলে যে কয়জন ভালো ফিল্ডার আছে তাদের মধ্যে অন্যতম লিটন দাস। আমি মনে করি সে মুশির (মুশফিকুর রহিম) চেয়ে ভালো ফিল্ডার। আমার কাছে মাঠে কয়েকজন ভালো ফিল্ডার থাকা খুব গুরুত্বপূর্ণ। মাঠে লিটন, আফিফ, (নাজমুল হোসেন) শান্তর মতো ফিল্ডাররা যে ৫-৬ রান বাচিয়ে দেয় সেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

তিনি আরও বলেন, ‘এটা একটা কারণ যে লিটন দারুণ এক ফিল্ডার। মুশফিক হয়তো কয়েকটা সুযোগ মিস করেছে। তবে সে একজন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। উইকেটের পেছনে থেকে সে বেশ ভালো ভিউ পায় মাঠের। যা দিয়ে সে ক্যাপ্টেনকে সাহায্য করতে পারে।’

error: Content is protected !!