সোমবার , সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

মাদারগঞ্জে ছয়টি পরিবারের বসত ঘর পুকুরের পানিতে, বসবাস করছে খোলা আকাশের নিচে


হুমায়ুন কবির, স্টাফ করসপনডেন্ট, মাদারগঞ্জ
জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার ২নং কড়ইচুড়া ইউনিয়নের লালডুবা গ্রামের ৬টি পরিবারের থাকার ঘরগুলি পুকুরের পানিতে ভেঙ্গে পড়ে রয়েছে। পরিবার গুলি খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে।
এলাকাবাসি ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের লোকজন জানান, প্রায় ৬০ বছর যাবৎ জাফরুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম, মৃত মছির, মোশেদা বেওয়া, জুয়েল মিয়া ও হইবর আলী বসবাস করছিল এই বসত ভিটাতে। তারা সকলেই দিন মজুর, পরের বাড়ীতে কাজ করে সংসার চালায়। পরিবার গুলিকে ভিটে মাটি ছাড়া করার জন্য একই গ্রামের বাসিন্দা জবেদ মন্ডলের ছেলে প্রভাবশালী মোগল মিয়া ২ বছর আগে বাড়ির সিমানা ঘেষে মাছ চাষ করার কথা বলে একটি পুকুর খনন করে। প্রথমে পুকুর থেকে মাটি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে মাটি উত্তোলন করে বিভিন্ন জনের নিকট মাটি বিক্রি করে। মাটি তোলার ফলে পুকুরটি গভীর হয়েছে অনেক। পুকুর খনন করার সময় পরিবারগুলি বাধা দিতে গেলে তাদেরকে খুন জখম করার হুমকি প্রদান করে মোগল মিয়া। তারা জীবনের ভয়ে কোন প্রকার ব্যবস্থা নিতে পারেনি। এবার বন্যার পানি আসার সাথে সাথে পুকুরের পানিতে ভেঙ্গে পড়েছে ৬ পরিবারের থাকার ঘরগুলি। বর্তমানে তারা খোলা আকাশের নিছে বসবাস করছে। রবিজল ও মোশেদা বেওয়া জানান, আমাদের এত ক্ষতি হওয়ার পরেও পুকুরের মালিক মোগল মিয়া আমাদের ক্ষতি পুরন দিবে তো দুরের কথা সে এক বারও দেখতে আসেনি। মোগল মিয়ার বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস কারো নেই এই লালডুবা গ্রামের। এ ব্যপারে কড়ইচড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক বাচ্চুর সাথে কথা বলে জানাগেছে, পুকুরের মালিক মোগল মিয়ার সাথে বিষয়টি নিয়ে বসতে হবে। এখন পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার গুলিকে সাহায্য করার মত কোন মানুষ এগিয়ে আসে নাই।

error: Content is protected !!