বুধবার , ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

আইনজীবী আমজাদ হোসেনের মৃত্যুতে জেলা আইনজীবী সমিতির সংবাদ সম্মেলন


এম আলমগীর, স্টাফ করসপনডেন্ট
সড়ক দুর্ঘটনায় জামালপুর জেলা আইনজীবী সমিতির জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেনের মৃত্যুতে জামালপুর জেলা আইনজীবী সমিতি সংবাদ সম্মেলন করেছে।
মঙ্গলবার বিকেলে জামালপুর জেলা আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে বিজ্ঞ সিনিয়র আইনজীবী বীর মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেনের দূর্ঘটনা জনিত কারণে মর্মান্তিক মৃত্যুর প্রতিবাদে এবং প্রকৃত দোষী সংস্থা ও ব্যক্তিকে চিহ্নিত করতঃ দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুর কাদের বাবুল খানের সঞ্চালনায় এতে সভাপতির বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি বিজ্ঞ আইনজীবী মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহ। এ সময় তিনি মরহুম আমজাদ হোসেনের জীবনী উল্লেখ করে বলেন, একজন আইনজীবী নাগরিকের মর্যাদা, সম্মান, অধিকার, সম্পত্তি রক্ষা করার জন্য আইন অঙ্গনে কাজ করেন। তেমননি একটি পেশায় নিয়োজিত একজন ব্যক্তি যিনি মুক্তিযুদ্ধে জীবন দিবার জন্য গিয়েছিলেন। তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। দীর্ঘ ৩০ বছর আগে তিনি একটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। এছাড়ও তিনি মাদারগঞ্জ উজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান দায়ীত্বও পালন করেছেন কিছু সময়। জামালপুর জেলা জজকোর্ট স্থাপিত হওয়ার পর তিনি প্রথম জিপি ছিলেন। দীর্ঘ ৪২ বছর তিনি এই আইন পেশায় গৌরবের সাথে নিয়োজিত ছিলেন বলে বক্তব্যে উল্লেখ করেন। জামালপুর শহরে ব্যাটারি চালিত অবৈধ যানবাহন ও অটোরিকশা বন্ধের দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি আইনজীবী জাহিদ আনোয়ার, আইনজীবী আমান উল্লাহ আকাশ, আইনজীবী শহিদুল ইসলাম পাহলোয়ান, খলিলুর রহমান, মুহাম্মদ আলী জিন্নাহ, গোলাম নবী, মোজাহারুল ইসলাম, পাবলিক প্রসিকিউটর নির্মল কান্তি ভদ্র, আইনজীবী আব্দুল্লাহ, মাহফুজুর রহমান মন্টু, আফতাব উদ্দিন চৌধুরী, মো. আমান উল্লাহ, মাহমুদুর রহমান, মো. রফিকুল ইসলাম, মো. শফিকুল ইসলাম আকাশ, মো. আনোয়ারুল করিম শাহজাহান, সৈকত আলী প্রমুখ।
উল্লেখ্য, আইনজীবী মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেন গত ৩০ জুন সকালে শহরের প্রধান সড়কে ব্যাটারিচালিত রিক্সায় আদালতে যাওয়ার পথে জামালপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে রিক্সাটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হন। পরে স্থানীয়রা আইনজীবী আমজাদ হোসেনকে গুরুতর আহত অবস্থায় দ্রুত জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি দেখে চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পথে তিনি মারা যান। ১ জুলাই মাদারগঞ্জ উপজেলায় দুটি, জামালপুরে একটি নামাজে জানাযা ও রাষ্ট্রীয় মর্যাদা তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে। ওই দুর্ঘটনায় রিকশাচালকও গুরুতর আহত হলেও তিনি প্রাণে বেঁচে গেছেন বলে যানা গেছে। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্য আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন আইনজীবীগণ। তার মৃত্যুতে জেলা আইনজীবীসহ জামালপুর বাসীর মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে। জামালপুর শহরে লাইসেন্স বিহীন সকল অটো রিকশা ও শহরের বাহির থেকে আসা ব্যাটারি চালিত অটো রিকশা বন্ধের দাবী জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা সাংবাদিকদের সমাজের বিবেক বলে উল্লেখ করে তাদের লিখনির মাধ্যমে জামালপুর জেলার সকল অনিয়ম, দূর্নীতি বন্ধে কাজ করার আহবান জানান।

error: Content is protected !!