মঙ্গলবার , আগস্ট ২০, ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

জামালপুরে র‌্যাবের অভিযানে হত্যা মামলার আসামি রজন গ্রেপ্তার   

রবিউল হাসান লায়ন 
জামালপুর সদর উপজেলার রানাগাছা ইউনিয়নে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে নবী সালাম (৫৮) নামের একজন সিএনজি অটোরিক্সা চালক হত্যা মামলার একমাত্র আসামি মো. রজন (১৫) নামের এক বখাটে কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। রবিবার সকালে উপজেলার রানাগাছা ইউনিয়নের দড়িহামিদপুর গ্রামের একটি সেচঘর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। রজন দড়িহামিদপুর পোড়াবাড়ী গ্রামের মো. সেলিম মিয়ার ছেলে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার রাত ৮টার দিকে জামালপুর-ময়মনসিংহ সড়কের দড়িহামিদপুর এলাকায় সিএনজি অটোরিক্সা চালক নবী সালাম একজন ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে খুন হন। রানাগাছা ইউনিয়নের দড়িহামিদপুর পোড়াবাড়ী গ্রামের সেলিম মিয়ার বখাটে ছেলে রজন একাই সদরের নান্দিনা বাজার থেকে নবী সালামের সিএনজি অটোরিক্সাটি ভাড়ায় রিজার্ভ করে রওনা হয়। কিছুদূর যাওয়ার পর জামালপুর-ময়মনসিংহ সড়কের দড়িহামিদপুর এলাকায় রজন অটোরিক্সাটি থামিয়ে চালক নবী সালামের বুকের ওপরের দিকে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করলে তিনি নিহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই ধারালো ছুরিটি উদ্ধার করে। ঘটনার পর থেকেই রজন গা ঢাকা দিয়েছিল। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে জুয়েল রানা বাদী হয়ে গত শনিবার জামালপুর সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় রজনকে একমাত্র আসামি করা হয়েছে। মামলা দায়েরের পর র‌্যাব-১৪ জামালপুর ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার জোনাঈদ আফ্রাদের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল আসামি রজনকে ধরতে অভিযানে নামে। র‌্যাবের দলটি রবিবার সকালে ঘটনাস্থল দড়িহামিদপুর এলাকায় একটি মাছের খামারের পশ্চিম কোণায় সেচপাম্প ঘর থেকে রজনকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। পরে তাকে জামালপুর সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।
র‌্যাবের জামালপুর ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার জোনাঈদ আফ্রাদ এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের জানান, সিএনজি অটোরিক্সা চালক হত্যাকান্ডের ঘটনাটি খুবই চাঞ্চল্যকর ঘটনা। দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামি রজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে এ হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করেছে। তাকে সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।
error: Content is protected !!