মঙ্গলবার , সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

বকশীগঞ্জে মসজিদে নামাজ পড়তে মুসল্লিদের বাধা দেওয়ার অভিযোগ


স্টাফ করসপনডেন্ট, বকশীগঞ্জ
জামালপুরের বকশীগঞ্জে ওয়াকফ করা মসজিদে নামাজ আদায়ে মুসল্লিদের বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। নামাজ আদায়ে বাঁধা দেওয়ায় মুসল্লিদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি সুরাহার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন এলাকার মানুষ।
অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার বাট্টাজোড় ইউনিয়নের পুরান বাট্টাজোড় গ্রামের আব্দুস সাত্তার মুন্সী ১৯৯০ সালের ৩১ জুলাই বাট্টাজোড় নতুন বাজার জামে মসজিদের জন্য ৭ শতাংশ জমি ওয়াকফ করে দেন। জমিটি ওয়াকফ করে দেওয়ার পর মসজিদের কাজে ব্যবহার হয়ে আসছে। সম্প্রতি স্থানীয় বাট্টাজোড় গ্রামের সাইফুল ইসলাম, নুরুজ্জামান ও মো. বকুল মিয়া মসজিদের দক্ষিণ ও পশ্চিম কোনে দোকান ঘর উত্তোলন করতে গেলে স্থানীয় মুসল্লিগন দোকান ঘর নির্মাণে বাধা দেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে মুসল্লিদের বাঁধা উপেক্ষা করে মসজিদটি তাদের দাবি করে ওই তিন জন দোকান নির্মাণ করেন। এমতাবস্থায় এই মসজিদের পাশেই তাবু টানিয়ে গত রমজান মাসের তারাবিহ ও ওয়াক্ত নামাজ পড়েন বাজারের মুসল্লিরা। ঈদের পর মুসল্লিরা আবার মসজিদে নামাজ পড়তে গেলে মুসল্লিদের বাঁধা প্রদান করেন সাইফুল, নুরুজ্জামান ও বকুল হোসেন। এ নিয়ে মুসল্লিদের সাথে বাকবিতন্ডা হয়। বর্তমানে বিবাদ দ্বন্দ্বের কারণে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনার সমাধান চেয়ে ১১ জুন বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বাট্টাজোড় নতুন বাজার জামে মসজিদের মুসল্লিগন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) দেওয়ান মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম জানান, দ্বন্দ্ব নিরসনের জন্য ১২ জুন বুুধবার বিকালে দুই পক্ষকে তার অফিসে ডাকা হয়েছে।

error: Content is protected !!