বুধবার , অক্টোবর ২৩, ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

বদলে যাওয়ার প্রথম ধাপে নিউজিল্যান্ড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ক্রাইস্টচার্চে সন্ত্রাসী হামলার পর অস্ত্র আইনে পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে নিউজিল্যান্ড। এ বিষয়ে সোমবার দেশটির মন্ত্রিসভা বৈঠকে বসতে যাচ্ছে। এদিকে, দেশটির সবচেয়ে বড় অনলাইন সাইট ট্রেড মি জানিয়েছে, তারা সেমি অটোমেটিক অস্ত্র কেনা-বেচা বন্ধ করেছে। সরকারের কাছ থেকে নতুন কোন নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত তারা সেমি অটোমেটিক অস্ত্র কেনা-বেচা করবে না।

ট্রেড মির তরফ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ক্রাইস্টচার্চে ওই হামলার পর জনগণের অনুভূতির প্রতি সম্মান জানিয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, সেমি অটোমেটিক আগ্নেয়াস্ত্র এবং এসব অস্ত্রের বিভিন্ন অংশ কেনা-বেচা আজ থেকে বন্ধ রাখা হবে। সোমবারের মধ্যেই সেমি অটোমেটিক আগ্নেয়াস্ত্রের তালিকা মুছে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এদিকে, দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডার্ন জানিয়েছেন, সোমবার তিনি এ বিষয়ে তার মন্ত্রিসভার সঙ্গে আলোচনা করবেন। দেশের অস্ত্র আইনে পরিবর্তন আনা হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন, নিউজিল্যান্ডে অস্ত্র আইনে পরিবর্তন আসবে এবং সেই পরিবর্তন হওয়ার এখনই সময়।

শুক্রবার ক্রাইস্টচার্চের দু’টি মসজিদে হামলা চালিয়ে প্রায় ৫০ জনকে হত্যা করে অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারেন্ট। একটি সেমি অটোমেটিক অস্ত্র দিয়ে নির্বিচারে গুলি চালায় সে।

ওই হামলাকারী যে ধরণের সেমি অটোমেটিক অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়েছিল, দেশটির মন্ত্রি পরিষদ সে ধরণের অস্ত্রের ওপর পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ঘটনার পরে পুলিশ জানিয়েছে, ট্যারেন্টের অস্ত্র বৈধ ছিল। সে কারণেই তার গুলি কিনতেও অসুবিধা হয়নি। সেদিনই এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, এর আগে কয়েকবারই অস্ত্র আইনে পরিবর্তন আনতে চাইলেও সেটি শেষ পর্যন্ত সম্ভব হয়নি। কিন্তু এবার এই ভয়াবহ ঘটনার পর তড়িঘড়ি করেই
আইন পরিবর্তনের উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির সরকার।

সূত্রঃ জাগো নিউজ

error: Content is protected !!