বুধবার , নভেম্বর ১৪, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

সরিষাবাড়ীতে জুট মিলের বেতন বোনাস দাবিতে সড়ক অবরোধ : পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষে আহত ২০


সিনিয়র স্টাফ করসপনডেন্ট, সরিষাবাড়ী
বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবিতে জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে আলহাজ জুট মিলের শ্রমিক-কর্মচারিরা সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে। এ অবরোধ চলাকালে পুলিশ লাঠিচার্জ করলে শ্রমিকের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫ জন পুলিশ ও অন্তত ১৫ জন নারী-পুরুষ শ্রমিক আহত হন। বৃহস্পতিবার পৌর এলাকা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চত্বর প্রধান সড়কে এ ঘটনা ঘটে।


জানা যায়, আলহাজ জুট মিলে ৩ হাজার শ্রমিক-কর্মচারি রয়েছে। তাদের দীর্ঘদিনের বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের দাবিতে আন্দোলন করে আসছিল শ্রমিক-কর্মচারিরা। এ আন্দোলন চলাকালে হঠাৎ ২১ জুলাই মিলটি বন্ধ ঘোষনা করে গা-ঢাকা দেন কর্তৃপক্ষ। এতে শ্রমিক-কর্মচারিরা ব্যাপক ভাবে ক্ষোভে ফুঁসে উঠে। এরপর শ্রমিক-কর্মচারিরা মিল চালু ও বকেয়া পাওনার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে ও স্বারকলিপি দিয়ে আন্দোলন চালিয়ে আসছে। এতে মিল কর্তৃপক্ষ তাদের আন্দোলনের কোন সাড়া দেয়নি। একপর্যায়ে পূর্বঘোষণা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবিতে সরিষাবাড়ী মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এলাকায় প্রধান সড়কে প্রায় ১ কিলোমিটার জুড়ে কাঠের গুঁড়ি ফেলে, টায়ার জ্বালিয়ে ও সড়কে বসে অবরোধ কর্মসূচি শান্তিপূর্ণ ভাবে পালন করে আসছিল শ্রমিক-কর্মচারিরা।

এ অবরোধ চলাকালে দফায় দফায় বিক্ষোভ করতে থাকে তারা। হঠাৎ দুপুর ২টার দিকে অবরোধকারীদের ওপর লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা চালায় পুলিশ। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে অবরোধকারীরা। পরে পুলিশের সাথে শ্রমিক-কর্মচারিদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক উপাধ্যক্ষ হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ ও শ্রমিকদের মধ্যে সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবেলা করে পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে আনেন। পরে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্যাম্পাসে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের জমায়েত করে এবং আওয়ামী লীগ নেতা উপাধ্যক্ষ হারুন অর রশিদ বলেন, আগামী রোববারের মধ্যে শ্রমিক নেতাদের (সিবিএ) নিয়ে মিল কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠক করে বকেয়া পাওনা ও ঈদ বোনাস দেয়ার চেষ্টা করা হবে। আওয়ামী লীগ নেতার এমন আশ্বাসে সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয় শ্রমিক-কর্মচারিরা।