মঙ্গলবার , অক্টোবর ২৩, ২০১৮
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

বাংলাদেশের মেয়েদের ১৪ গোলের ঝড়ে উড়ে গেল পাকিস্তান

খেলাধুলা ডেস্ক

মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ ফুটবল টুর্নামেন্টের প্রথম আসরে শিরোপা জিতে ইতিহাস গড়েছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। ভুটানে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় আসরের প্রথম ম্যাচে লাল-সবুজরা ১৪-০ গোলে পাকিস্তানকে বিধ্বস্ত করেছে। ফরোয়ার্ড শামসুন্নাহার একাই করেছেন হ্যাটট্রিকসহ পাঁচ গোল।

বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের শুরুটা হয়েছে দারুণ। বৃহস্পতিবার ভুটানের রাজধানী থিম্পুর চালিমিথাং স্টেডিয়ামে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে সাফে নিজেদের আধিপত্য ধরে রাখতে শুরু থেকে পাকিস্তানকে চাপে রাখে গোলাম রব্বানি ছোটনের শিষ্যরা।

পাকিস্তানকে কোন সুযোগ না দিয়ে একের পর তাদের জাল কাঁপিয়েছে তারা। প্রথমার্ধেই বাংলাদেশ এগিয়ে যায় ৬-০ গোলে। ৫ মিনিটে সতীর্থ খেলোয়াড়ের পাসে তহুরা খাতুন বাংলাদেশকে প্রথম এগিয়ে নেন।১৭ মিনিটে স্কোর লাইন দাঁড়ায় ২-০।

মনিকা চাকমা ফ্রি কিক থেকে লক্ষ্যভেদ করেন।দু’মিনিট পর আঁখির লম্বা পাসে তহুরা খাতুন হেডে বল জালে জড়িয়ে করেন ৩-০। ৩১ মিনিটে শামসুন্নাহার ডান দিক থেকে গোলকিপারকে পরাস্ত করে স্কোর ৪-০ করে পাকিস্তানকে আরো চাপে ফেলে দেন।

৩৯ মিনিটে অধিনায়ক মারিয়া মান্ডা বাঁ পায়ের শটে ব্যবধান আরো বাড়িয়ে দেন। পরের মিনিটে আঁখি খাতুন প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে জোরাল শটে লক্ষ্যভেদ করেন। গোলকিপার ঝাঁপিয়ে পড়েও কিছুই করতে পারেননি।

দ্বিতিয়ার্ধে বাংলাদেশ ছিল আরো দুর্বার। আট গোল আসে এই অর্ধে। মুহুর্মুহু আক্রমণে নিজেদের রক্ষণ সামলাতে ব্যস্ত ছিল পাকিস্তান। যদিও শেষ রক্ষে হয়নি। পুরোটা সময়ই পাকিস্তানের রক্ষণে আক্রমণ শাণিয়েছে মেয়েরা। তাতে ৪৮ ও ৫৮ মিনিটে সাজেদা খাতুন দুই গোল করেন। ৫০,৫৪, ৫৭ ও ৯০ মিনিটে শামসুন্নাহার করেন আরও চার গোল। ৬০ ও ৮৮ মিনিটে ডিফেন্ডার আনাই মোগিনী দুগোল করে দলকে আরো এগিয়ে নেন।

এত বিশাল ব্যবধানে জয়ের পরেও আগের রেকর্ড ভঙ্গ করতে পারেনি বাংলাদেশ। ২০১৫ সালে ভুটানকে ১৫-০ গোলে হারিয়েছিল মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৪ দল।

দিনের উদ্বোধনী ম্যাচেও ছিল উত্তেজনার ছোঁয়া। বিশাল ব্যবধানে জয় পায় ভারত। তারা ১২-০ গোলে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কাকে। ‘বি’ গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে হবে ১৩ আগস্ট, সেখানে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ নেপাল।৬ দলের আসরে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের অন্য প্রতিপক্ষ নেপাল।

যাদের বিপক্ষে ম্যাচ ১৩ আগস্ট। ‘এ’ গ্রুপে রয়েছে ভারত, ভুটান ও শ্রীলঙ্কা। গ্রুপ পর্বের খেলা শেষে সেরা চার দল খেলবে সেমি ফাইনালে। ১৬ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে দুটি সেমি ফাইনাল ম্যাচ। আসরের ফাইনাল ১৮ আগস্ট।

সূত্রঃ ডেইলি বাংলাদেশ