মঙ্গলবার , ডিসেম্বর ১০, ২০১৯
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

ব্লক সরে গিয়ে ইসলামপুরে যমুনার বাম তীর সংরক্ষণ প্রকল্পে ধ্বস ॥ আতঙ্কে এলাকাবাসী


লিয়াকত হোসাইন লায়ন, স্টাফ করসপনডেন্ট, ইসলামপুর
জামালপুরের ইসলামপুরে যমুনার বাম তীর সংরক্ষণ প্রকল্প বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ধ্বস দেখা দিয়েছে। নিচ থেকে ব্লক সরে গিয়ে ধ্বসে যাওয়ায় এলাকাবাসীর মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাথর্শী ও কুলকান্দি ইউনিয়নকে বন্যার কবল থেকে রক্ষার জন্য দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কাবিখা প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৩শত মেট্রিক টন গম ও ১২ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রায় ৪ কিলোমিটার দীর্ঘ একটি বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। মোরাদাবাদ এলাকার অংশে বাঁধের নিচে সিসি ব্লক পাইলিং দেবে গিয়ে প্রায় ৬০ ফুট গভীর হয়ে বিভিন্ন স্থানে ধ্বস দেখা দিয়েছে। এতে এলাকাবাসী বাঁধ ভাঙার আতঙ্কে রয়েছে। জানাগেছে, বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধের পাথর্শী ইউনিয়নের বাঁধের নিচের অংশে সিসি ব্লকের পাইলিং সরে গিয়ে প্রায় ৬০ ফুট গভীর হয়ে বিভিন্ন স্থানে ধ্বস দেখা দেওয়ায় বাঁধটি হুমকির মূখে পড়েছে। এতে করে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কাবিখা প্রকল্পের আওতায় বরাদ্দের ব্যায় ভেস্তে যেতে বসেছে। এ বিষয়ে এলাকাবাসী পানি উন্নয়ন বোর্ডকে দায়ী করছেন। এলাকাবাসী জানান, পশ্চিমাঞ্চলের দূর্ভোগ লাঘবে স্থানীয় এমপি ফরিদুল হক খান দুলালের প্রচেষ্টায় বাঁধটি নির্মানে আমরা শান্তির নিঃশ্বাস নিতে শুরু করেছিলাম। এতোদিন ঠিক থাকলেও বর্তমানে দুইটি স্থানে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সিসি ব্লকের পাইলিং দেবে যাওয়ায় পানির স্রোতে বাঁধটি ভেঙ্গে যাচ্ছে। এতে আমাদের মনে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। দ্রুত মেরামত করা না হলে বাঁধটি ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। পাথর্শী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইফতেখার আলম বাবুল জানান, মোরাদাবাদ অংশে সিসি ব্লক সরে গিয়ে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়েছে। বালুভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং কাজ চলছে, ক্ষতি হবেনা বলে মনেকরি। বাঁধটি এবার টিকে গেলে আগামীতে বাঁধের দুইপার্শে সিসি ব্লকের কার্পেটিং করা হলে বাঁধটি স্থায়ী হবে এবং কুলকান্দি হয়ে কয়েক এলাকার যোগাযোগ ভাল থাকবে। প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান টিটু জানান, পশ্চিমাঞ্চলবাসীকে বন্যার কবল থেকে রক্ষায় দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কাবিখা প্রকল্পের আওতার বরাদ্দের কাজ চলমান রয়েছে। বাঁধের নিচে সিসি ব্লক সরে গিয়েছে তবে জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে আশা রাখি রক্ষা হবে। জামালপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী মাজহারুল ইসলাম জানান, সিসি ব্লক সরে গিয়ে বাঁধটিতে ধ্বস দেখা দিয়েছে। সেখানে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং করার কাজ চলমান রয়েছে। এটা কোন সমস্যা না তবে সার্ভে করছি শুকনো মৌসুমে এটা পূন: নির্মান করা হবে।

error: Content is protected !!